মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন
ঘোষণা:
দেশের প্রতিটি জেলায় সাংবাদিক নিয়োগ চলছে।

কুষ্টিয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও’র অভিযোগ: গ্রেপ্তার-২

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩৭২ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১২ মার্চ, ২০২১, ৩:৩৫ পূর্বাহ্ন

কুষ্টিয়ায় প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারন করে টাকা দাবীর অভিযোগে ২ যুবক গ্রেফতার হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টায় কুষ্টিয়া শহরের ঈদগাহ পাড়া থেকে ওই ২ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে কুষ্টিয়া মডেল থানা পুলিশ।
এ ঘটনায় প্রবাসীর স্ত্রী কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেপ্তাররা হলেন- শহরের স্যার ইকবাল রোডের বাসিন্দা আব্দুল করিমের ছেলে রবিউল ইসলাম সোহাগ (২০) ও আড়ুয়াপাড়া এলাকার আব্দুল সড়কের বাসিন্দা শফিউল ইসলামের ছেলে শাকিল আহমেদ (২২)।

পুলিশ ও নারীর স্বজনরা জানান,‘ প্রবাসীর স্ত্রী ওই নারী শহরের একটি কোচিংয়ে বড় ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিদিন পড়াতে যান। বুধবার বিকেলে সন্তানকে কোচিংয়ে দিয়ে বাইরে অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় আগে থেকে পরিচিত এক নারী তাকে বলেন, এখানে ২ ঘণ্টা বসে না থেকে তার সঙ্গে শহরে যেতে। পরে ওই নারী তাকে সঙ্গে নিয়ে শহরের এনএস রোডে একটি বাসায় নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে ওই নারীর মোবাইলে ফোন আসার পর তিনি দরজার শেকল আটকে দিয়ে বাইরে চলে যান। এসময় পাশের কক্ষে অবস্থান করা দুই যুবক এসে নারী ও তার ৪ বছরের শিশু পুত্রকে মারধর করে। পরে তাকে দুই যুবক পালাক্রমে ধর্ষণ করে এবং ভিডিও ধারণ করে দেড় লাখ টাকা দাবি করেন বলে নারীর স্বজনদের অভিযোগে জানা যায়।

স্বজনরা আরও জানান, পরে সেই ভিডিও ওই নারীর ভাসুরের কাছে পাঠানোর কথা বলে হুমকি দেয়। এসময় ভুক্তভোগী তাদের হাত-পা ধরে বারবার মাফ চান। এক পর্যায়ে টাকা দেওয়ার শর্তে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। এরপর বাড়িতে ফিরে তিনি বিষয়টি তার স্বজনদের জানান।

ওই নারী জানান, বাড়িতে আসার পর একটি মোবাইল নাম্বার থেকে তার কাছে ফোন দিয়ে ৫০ হাজার টাকা দাবি করা হয়। এসময় তিনি নিজের মোবাইলে কলটি রেকর্ড করে রাখেন। পরে মডেল থানা পুলিশ ও র‌্যাবকে বিষয়টি জানান। এরপর পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে ওই যুবকের অবস্থান নিশ্চিত করে বৃহস্পতিবার বিকেলে ঈদগা পাড়ার একটি বাড়িতে অভিযান চালায়।

কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আতিকুল ইসলাম আতিক বলেন,‘ এক নারীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই নারী মামলা করেছেন। এ ঘটনায় আর কেউ জড়িত আছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ সূত্র: প্রথমআলো ও সমকাল

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন


এ জাতীয় আরো খবর...
এক ক্লিকে বিভাগের খবর