বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১০:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
মেধাবী ছাত্র আব্দুল্লাহ আল মামুন এর পাশে দাঁড়িয়েছেন নিঃস্বার্থ সেবা ফাউন্ডেশন জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে ইবিতে সভা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক হলেন রজত কান্তি দেব কক্সবাজারে দৈনিক ভোরের চেতনা পত্রিকার ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎযাপন মিরপুরে নার্সারি ব্যবসায়ী হত্যাকাণ্ডে গ্রেফতার ১ ইবি ও জবি’র গবেষণা সহযোগিতা সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর উন্নত চিকিৎসার জন্য চ্যালেঞ্জকে ঢাকায় প্রেরণ ব্রাজিল ফ্যান ক্লাবের বর্ণাঢ্য র‌্যালী বাউলদের উপর হামলা ও সাম্প্রদায়িক উগ্রবাদী তৎপরতার প্রতিবাদে মানববন্ধন ইবি’র ৪৩ বছর পূর্ণ হচ্ছে কাল
ঘোষণা:
দেশের প্রতিটি জেলায় সাংবাদিক নিয়োগ চলছে।

৩ মার্চ; বাংলাদেশের ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩৭৪ বার পড়া হয়েছে
আপডেট টাইম : বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১, ৪:০২ অপরাহ্ন

মার্চ থেকেই ফুঁসে ওঠে মুক্তিকামী বাঙালি। ১৯৭১ সালের ৩ মার্চ বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়। পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর নানা নিপীড়নে বাঙালির হৃদয়ে দানা বাধতে থাকে স্বাধীনতার স্বপ্ন।
৩ মার্চ পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া ঢাকায় পার্লামেন্টারি পার্টিগুলোর নেতাদের সঙ্গে এক গোলটেবিল বৈঠক আহ্বান করেন। কিন্তু বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সে প্রস্তাব ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেন।
বিকেলে ছাত্রলীগ সভাপতি নুরে আলম সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে পল্টন ময়দানে অনুষ্ঠিত হয় এক বিশাল ছাত্র জনসভা। এ সভায় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাজাহান সিরাজ বঙ্গবন্ধুর সামনে পাঠ করেন বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইশতেহার।
আর এ ইশতেহারে বলা হয়- ‘৫৪ হাজার ৫০৬ বর্গ মাইল বিস্তৃত ভৌগোলিক এলাকার সাত কোটি মানুষের জন্য আবাসভূমি হিসেবে স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রের নাম বাংলাদেশ।
স্বাধীনতার মাস অগ্নিঝরা মার্চে দৈনিক ইত্তেফাক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিল। ১৯৭১ সালের ৩ মার্চ প্রকাশিত দৈনিক ইত্তেফাকের প্রথম পাতার প্রধান খবরের শিরোনাম ছিল ‘বিক্ষুব্ধ নগরীর ভয়াল গর্জন’। ঢাকার রাজপথে ছাত্র-শ্রমিক ও সরকারি-বেসরকারি চাকরিজীবীদের বিক্ষোভ মিছিলের একটি আলোকচিত্র প্রকাশিত হয়। জাতীয় পরিষদের অধিবেশন স্থগিত করার প্রতিবাদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে ঢাকা প্রচণ্ড গর্জনে ফেটে পড়ে ২ মার্চ। দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষ এতে অংশগ্রহণ করে। ৩ মার্চ দিনটি জাতীয় শোক দিবস ঘোষণা করে আওয়ামী লীগ।
‘আমি শেখ মুজিব বলছি’ শিরোনামের খবরে জানানো হয় তার আহ্বান। ২ মার্চ এক বিবৃতিতে জনগণের উদ্দেশে তিনি সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল পালনের আহ্বান জানান। বাংলার স্বাধিকার আন্দোলনের এই মহানায়ক মনে করিয়ে দিয়েছিলেন, ‘যেখানেই জন্মগ্রহণ করুক, যে ভাষাতেই কথা বলুক, বাংলার প্রত্যেক বাসিন্দাই আমাদের দৃষ্টিতে বাঙালি। তাদের জান-মাল-ইজ্জত আমাদের কাছে পবিত্র আমানত এবং সেগুলো অবশ্যই রক্ষা করতে হবে।’
‘আমি শেখ মুজিব বলছি’ শিরোনাম ছাড়াও ছিল জনগণের প্রতি বঙ্গবন্ধুর দৃঢ়কণ্ঠের আহ্বান, ‘বাংলার কণ্ঠ স্তব্ধ করা যাইবে না: শান্তি-শৃঙ্খলার মধ্য দিয়া আন্দোলন চালাইয়া যান।’ ঢাকায় নিরস্ত্র জনগণের ওপর গুলিবর্ষণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে আওয়ামী লীগ প্রধান বলেন, ‘বাংলাদেশে আগুন জ্বালাবেন না। যদি জ্বালান, সেই দাবানল থেকে আপনারাও রেহাই পাবেন না।’
১৯৭১ সালের ৩ মার্চ ঢাকা হরতাল ছিল। পল্টনে জনসভা ও গণমিছিলের আয়োজন করা হয়। জাতীয় পরিষদের অধিবেশন স্থগিতের মাধ্যমে চক্রান্ত প্রতিহত করার সংকল্প করে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ছাত্র সংগঠন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন


এ জাতীয় আরো খবর...
এক ক্লিকে বিভাগের খবর